Wednesday, August 15, 2007

অনেক প্রতিকুলতা পেরিয়ে অবশেষে আমার মা

লিখেছেন:হেলেন সরকার

এই ছোট্ট পৃথিবীতে একটাই শব্দ আছে যা বললেই প্রাণ জুড়িয়ে যায় তা হলো মাযদি বলি আমার মা পৃথিবীর সেরা মা তা হলে ভুল হবে না আমি যখন খুব ছোট তখন থেকেই দেখে আসছি আমার মমতাময়ী মার পরিশ্রমী জীবনযাত্রা কত কষ্ট করে সে আমাদের লালন পালন করেছে

তাঁর জীবনের শুরুটা ছিল এরকম: তাঁর স্কুল জীবন কেটেছে হোস্টেলেএস.এস.সি এর পর তার বিয়ে হয়ে যায় অবশ্য তার আগেই গ্রমের একটা ছোট্ট স্কুলে তাঁর চাকুরী হয় আর এভাবেই শুরু হয় আমার মায়ের জীবনের কষ্টকর পথ চলা

এরপর মায়ের কোল জুড়ে আসে আমার দাদা এবং তারও কয়েক বছর পর আমি, সময় থেমে থাকেনি সেই সাথে থেমে থাকেনি আমাদের দুই ভাই বোনের বড় হয়ে বেড়ে ওঠা এবং মায়ের অক্লান্ত পরিশ্রম

মা জানতো এবং বিশ্বাস করতো লেখাপড়া ছাড়া জীবনের অমসৃণ পথে চলা অনেক কষ্টের তাই তার কাজের পাশাপাশি চলে সংসার এবং পড়াশুনা আমি যখন সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী তখন মা আই.এ এবং যখন আমি নবম শ্রেণীতে পড়ি তখন সে অনেক কষ্ট করে বি.এ পরীক্ষা দেয় এবং যথারীতি পাশ করেএরপর সে একটা ভালো অফিসে কাজ করার সুযোগ পায়নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তোলার জন্য সে আপ্রাণ চেষ্টা করেছে, এখনও করছে

আমাদের ছোট পরিবারে বাবার ও অনেক ভূমিকা ছিল, ছিল বলছি এই কারণে আমার বাবা এই পৃথিবীতে আর নেই কিন্তু মা ই এখন বাবা হয়ে আমাদের বুকে জড়িয়ে রাখে আমার দাদা এখন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার আর আমি বি.এস.এস ২য় বর্ষের ছাত্রী

আমার মায়ের জীবন থেকে আমি একটা বিষয় খুব ভালো ভাবে শিখেছি তা হলো কোন অবস্থাতেই হাল ছেড়ে না দিয়ে সামনে দিকে এগিয়ে চলা, জীবনকে সাজিয়ে তোলা নতুন রং-এ, নতুন গতিতে আমার জীবনের আদর্শ আমার মা, পৃথিবীর সব ভালবাসা দিয়ে আমি আমার মাকে ভরিয়ে দিতে চাই