Thursday, December 13, 2007

ব্লগার প্রোফাইল- (শিক্ষার্থী)

Title of this post: Bloggers profile (students)

হাছিনা আকতার







"আমার নাম হাছিনা আকতার । আমার জন্ম স্থান নোয়াখালী এবং আমার জীবনে উনিশটি বছর নোয়াখালীতেই কাটাই। এখন ঢাকা থাকি। আমার বাবার নাম, (মৃত) ছিদ্দিকুর বহমান, তিনি সরকারী চাকুরী করতেন তিনি ২০০১ সালে মৃত্যু বরন করেন। আমার মায়ের নাম ছালমা আক্তার্‌, তিনি গৃহিনি। আমরা তিন ভাই দুই বোন।

আমি দাখিল” পাশ করি ২০০১ সালে বেগম” খালেদা জিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে এবং আলিম পাশ করি ২০০৩ সালে সোনাইমুড়ী হামিদীয়া কামিল মাদ্রাসার এর পাশাপাশি হ্যানিম্যান হোমিও প্যাথি মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতাল কুমিল্লা ডিপ্লোমা ইন হোমিও প্যাথিক মেডিসিন এন্ড সার্জরী র্কোসের ৪র্থ বর্ষের ছাত্রী। আমার বেড়াতে ভালো লাগে। আমি সেলাই কাজ করতে পারি, সেলাই করতে আমার ভালোলাগে। আমি সিনেমা দেখতে পছন্দ করি আর আমার পছন্দের ছবির নাম মাটির ময়না। আমি একজন ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করতে চাই এবং পাশাপাশি হতে চাই কম্পিউটার অপারেটর নিজেকে ভালো ভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই এবং সুন্দর ভাবে গড়তে চাই।

নারী জীবন মহিলাদের জন্য সুন্দর একটা প্রতিষ্ঠান। আমি প্রথমে ইংলিশ- ক্লাসে ভর্তি হই এবং কোর্স কমপ্লিট করে ইংলিশ-ক্লাসে পড়ছি এবং কম্পিউটার শিখছি। প্রথমে আমি ব্রগ সম্পর্কে কিছুই জানতাম না কিন্তু নারী জীবনে এসে আমি ব্লগ সম্পর্কে জেনেছি এবং ব্লগে লিখার চেষ্টা করছি।"


আফরোজা আখতার








"আমার নাম আফরোজা আখতার। ১৯৮৭ সালে ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ীয়া থানার মহেশ পুর গ্রামে আমি জন্মগ্রহণ করেছি। মা-বাবা ও চার ভাই বোন নিয়ে আমাদের সংসার। আমার বড়ভাই তিনি একজন মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষক বড় বোন প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষিকা । মেজো ভাই এক মাওলানা এবং সেজোভাই পুলিশ সার্জন।

আমি একজন ছাত্রী । আমি বিবাহিত। আমার স্বামী একজন ইঞ্জিনিয়ার। ২০০২ সালে আমি আজিম র্গালস্‌ স্কুল” থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এস,এস,সি পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছি এবং ২০০৪ সালে আখতার সুলতানা মহিলা কলেজ” থেকে প্রথম বিভাগে উর্ত্তীণ হয়ে বর্তমানে স্বিদ্ধেশ্বরী বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ এ বি,এস, এস এ পড়ছি। তার পাশাপাশি নারী জীবনে ইংলিশ ক্লাস করছি। আমার প্রিয় সখ হল বই পড়া। শরৎচন্দ্র ও ইমদাদুল হক মিলনের বই পড়তে আমার খুব ভাল লাগে। লেখা পড়া শেষে আমি একজন আদর্শ শিক্ষিকা হতে চাই । আমি ইংলিশ ভাষায় দক্ষতা অর্জন করার জন্য নারী জীবন” প্রজেক্টে এসেছি কারন এখানে খুব ভাল ভাবে ইংলিশ শিক্ষা দেওয়া হয় পাশাপাশি আমি ব্লগে ও অংশ গ্রহণ করছি যাতে আমি আমাদের নিজেদের সংস্কৃতি অন্যান্য দেশের মানুষের সামনে তুলে ধরতে পারি।"