Saturday, February 9, 2008

ভাসানী নভোথিয়েটার

Title of this post: Bhasani Novo theatre by Hasina Akter

বিনোদনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদে বিজ্ঞান প্রযুক্তি শিক্ষার উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে নির্মিত ভাসানী নভোথিয়েটার উদ্বোধন করা হয় ২০০৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বররাজধানীর বিজয় স্মরনীর মোড়ে অবস্থি ভাসানী নভোথিয়েটার প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ১৩০ কোটি টাকাসম্পূর্ন দেশীয় অর্থায়নে ঐটি নির্মান করেছে সরকারের বিজ্ঞা এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়প্রকল্পটির স্থপতি আলী ইমাম,৪ একর জমির উপর ভাসানী নভোথিয়েটারের অবস্থাএ প্রকল্পে রয়েছে তিন তলাবিশিষ্ট মূল নভোথিয়েটার ভবন, ভবনের কেন্দ্রভাগে দৃষ্টি নন্দন অ্যালুমিনিয়াম মেটালি ডোম, ভেতরে ২৭৫ টি বিশেষ ধরনের আসনবিশিষ্ট প্লানেটরিয়াম, ১৭০ আসন বিশিষ্ট অডিটরিয়াম, ভবনের সম্মুখভাগে ও দুই পাশে তিনটি জলাধর, পেছনের অংশে তিন তলা বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবন, জ্যোতিবিজ্ঞানে জ্ঞান লাভের জন্য নানা রকমের প্রদর্শনী, ল্যান্ডস্কেপসহ ফুলের বাগান, ফোয়ারা গার্ডেন লাইট প্রভৃতিভবনটির ডোমের আয়তনের ব্যাস ৯৬ ফুটকেন্দ্রে রয়েছে ৭০ ফুট উচ্চতাবিশিষ্ট একটি মেটালিক ডোমনভোথিয়েটারের কেন্দ্রে অবস্থিত ২৩ মিটার ইনার ডোমের উপর নিচ থেকে প্রায় ১৫০ টি প্রজেক্টে ব্যবহার করে মাল্টিপল ইমেজের সমন্বয়ে একটি কৃত্রিম মহাকাশ তৈরি করা হয়েছেনভোথিয়েটারের পাঁচটি লেভেলমাটির উপরের দুইটি লেভেল হচ্ছে +৫১০০ এবং +০০ লেভেলএই গুলোতে রয়েছে বিভিন্ন প্রদর্শনী বস্তু, টিভি স্ক্রিন, সিসি টিভি প্রভৃতিমাটির নিচের তিনটি লেভেল হচ্ছে ৩৭০০, ৫৮৫৮, ৯৭৫০ লেভেলএই তিনটি লেভেল যথাক্রমে রয়েছে জনসাধারনের জন্য ১৫০টি কার পার্কিংয়ের সুবিধা, পূর্ব আছে প্রতিবন্ধীদে জন্য সিঁড়ি, পাশেই রয়েছে বিজ্ঞান মেলা বা প্রদর্শনীর জন্য বিশাল জায়গা, টিকেট কাটার জন্য আলাদা কাউন্টারভবনটির দুটি ভূগর্ভস্থ, ফ্লোরে দেশ বিদেশের খ্যাতনামা বিজ্ঞানী ও গবেষকদে ছবি ও জীবন বৃত্তান্ত রয়েছেএখানে ২০০০ কিলো ভোল্টা অ্যাম্পিয়ার (কেভিত্র) বৈদুৎতিক উপকেন্দ্র এবং ৫০০ কেভিত্র ইমারজেন্সি প্যানারোমা লিফট স্থাপন করা হয়েছেরয়েছে ১২ টি ক্যামেরা সম্বলিত সি সি টিভি

১৯৯৫ সালে বিএনপি সরকারের আমলে এ নভোথিয়েটার প্রকল্পের দলিল তৈরি হয়রে ১৯৯৭ সালের ৩ মার্চ আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে প্রকল্পটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার নাম করন করে দরপত্র আহবান সহ অন্যান্য কাজ শুরু হয়১৯৯৮ সালে দু-বার ও ১৯৯৯ সালে একবার আন্তর্জাতিক দরপত্র আহবান করে প্রক্ষেপন যন্ত্রপাতি সর্বরাহের কাজ দেয়া হয়জাপানের গোটো অপটিক্যাল ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানিকেমেটালিক ডোম স্থাপনের কার্যাদেশ প্রাপ্ত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠাণে মেসার্স গ্যাসমিনসহ বিগত সরকারের আমলে এই নভোথিয়েটার নির্মানে স্থবিরতা এর নির্মান ব্যয় অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছেনভোথিয়েটারের অর্ধ গোলআকৃতির ডোম আছে বিমোহিত করার মত প্রক্ষেপন পদ্ধতির যন্ত্রপাতিঅ্যাস্ট্রোটেকের পারফোরেটেড এলুমিনিয়াম পদা গোটোর জিএসএস হেলিয়স স্পেস সিমুলেটের বিভিন্ন ধরনের স্পেশাল প্রজেক্ট এবং অ্যাষ্ট্রোভিশন ৭০

বিজ্ঞান সহায়ক এ নভোথিয়েটারে সম্পূর্ণ বিনোদনের মাধ্যমে মানুষকে বিজ্ঞান মনষ্ক করে তোলার জন্য প্রদর্শিত হচ্ছে বিস্ময়কর ছবিমনে রাখার মত প্যানো-হেমিসকারিক প্রক্ষেপন যন্ত্রে সাহায্যে দেখানোর হচ্ছে প্ল্যানেট শো জার্নি টু ইনফিনিটিডাঃ বিল গুস এর অসাধারন সৃষ্টি জানি টু ইনফিনিট ছবিতে জি এস এস হেলিয়স অ্যাষ্ট্রোভিশন ৭০ যৌথভাবে দর্শকদে নিয়ে যায় এক ভিন্ন জগতেন্য সে যাত্রাপথে বিস্ময়কর শব্দ ও ছবির সম্মিলন ঘটেচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন প্রক্ষেপন যন্ত্রে অনিন্দ্য সুন্দ বর্ণিল আলোকচ্ছটা অ্যাষ্ট্রোভিন ছবি এবং স্কাইক্যান ভিডিও পৌঁছে দেয় সৌরমন্ডলে মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সীতেসেখান থেকে দেখা যায় মহাকাশের বিস্তৃত সীমাসেখান থেকে দেখা যায় মহাকাশের বিস্তৃত সীমা। খুব কাছ থেকে দেখা যায় তাহার মৃত্যু এবং এগুলোর কোন কোনটির কৃঞ্চ গহ্বরে হারিয়ে যাওয়ার দৃশ্যসূর্যের বুকে আগুনের সাগরসূর্যে প্রচন্ড তাপে দগ্ধক্ষত বিক্ষত বুধ গ্রহের অবয়বদেখা যায় শনির বলয় কিংবা গ্রহরাজ বৃহষ্পতিবিশ্বাস্য সে আলো ও শব্দের কারসাজি না দেখালে বিশ্বাস করার মত নয়শূন্যে ভেসে ভেসে দেখা যায় আমাদের সৌরজগতের সকল গ্রহ ছায়াপথ সহ বিস্ময়কর সৃষ্টি প্রক্রিয়াঅন্যান্য স্পেস থিয়েটারের মত ভাসানী নভোথিয়েটার জ্যোতিবিজ্ঞানকে তুলে ধরার পাশাপাশি জীববিজ্ঞান ইতিহাস, শিল্প ভূগোলে নৃবিজ্ঞানের বিভিন্ন দিকের সাথে এর যোগসূত্র স্থাপন করবে